বিশ্বজুড়ে ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ডিজিটাল মুদ্রা

1
baniktube.com

 

নিউজ ডেস্কঃ বিশ্বজুড়ে ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ডিজিটাল মুদ্রা। টাকার নোট বা পয়সার বদলে ব্যবহার বাড়ছে ডিজিটাল মুদ্রা বা ক্রিপ্টোকারেন্সির। আর্থিক লেনদেনে মানুষের চিন্তাধারাকে আমূল বদলে দিচ্ছে সময়োপযোগী এ উদ্ভাবন।

 

নজর কেড়েছে বড় বিনিয়োগকারী ও করপোরেট জগতেরও। বর্তমানে বিটকয়েন, এথেরিয়াম, রিপল, লাইটকয়েনসহ হাজারো ক্রিপ্টোকারেন্সি ভার্চুয়াল দুনিয়া চষে বেড়াচ্ছে। বাস্তবে এর অস্তিত্ব নেই। এধরনের ডিজিটাল মুদ্রা ক্রিপ্টোকারেন্সী হিসাবেও পরিচিত। এমুদ্রা কেবল ডিজিটাল রূপেই পাওয়া যায়।

 

বিশ্বে ২০০৯ সালে প্রথম ডিজিটাল মুদ্রা হিসাবে বিটকয়েনের আবির্ভাব হলেও বর্তমানে এই ডিজিটাল মুদ্রা বা ক্রিপ্টোকারেন্সীর সংখ্যা ছয় হাজারেরও বেশী। এই কারেন্সী কোনো দেশের সরকার বা প্রতিষ্ঠান নিয়ন্ত্রন করে না। এটি ব্লক চেইন প্রযুক্তির মাধ্যমে পরিচালিত হয়ে থাকে।

 

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মান, জাপান, ভারতসহ বিশ্বের প্রায় ৬৯ টি দেশে এ মুদ্রার বৈধ প্রচলন রয়েছে। এ মুদ্রার বাজার বিশ্বে দুই ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়েছে। ২০১৪ সাল থেকে বিটকয়েন এর লেনদেন বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক ব্যাংলাদেশে নিষিদ্ধ বা অবৈধ ঘোষণা করা হয়। এছাড়াও নিষিদ্ধ রয়েছে আলজেরিয়া, ভলিবিয়া, মরক্কো, নেপাল ও মেসিডোনিয়াসহ কতিপয় দেশে।

 

যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় আশি শতাংশ ব্যাংক এ মুদ্রা তাদের ব্যাংকিং কার্যক্রমে যুক্ত করার জন্য কাজ করছে। এ কার্যক্রমে এগিয়ে গেছে চীন, রাশিয়া, অষ্ট্রেলিয়াসহ আরো কিছু উন্নত দেশ।